হোম আইপিএল যে ৮ টি রেকর্ড হলো এবারের আইপিএল অকশনে

যে ৮ টি রেকর্ড হলো এবারের আইপিএল অকশনে

by salman

ছোট নিলাম (মিনি অকশন) হলে কী হবে, চেন্নাইতে অনুষ্ঠিত এবারের আইপিএল নিলাম যেন ইতিহাসই সৃষ্টি করেছে। তালিকায় ছিলেন মোট ২৯২ জন ক্রিকেটার। এর মধ্যে ১৩০জন ক্রিকেটারের নাম ডাকা হয়েছে এবারের আইপিএলের নিলামে। এর মধ্যে বিক্রি হয়েছেন মাত্র ৫৭জন ক্রিকেটার। এ ফাঁকেই আটটি রেকর্ড গড়ে ফেলেছে ১৪তম আইপিএলের নিলাম।

১. আইপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে দামি ক্রিকেটার

ক্রিস মরিস হয়ে গেলেন আইপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে দামি ক্রিকেটার। রাজস্থান রয়্যালস তাকে কিনে নিয়েছে ১৬ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে। তার ভিত্তিমূল্য ছিল ৭৫ লাখ রুপি।

এর আগে ২০১৫ সালে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস (বর্তমানে দিল্লি ক্যাপিটালস) ১৬ কোটি রুপি দিয়ে কিনেছিল যুবরাজ সিংকে। তবে, এক মৌসুমে ক্রিস মরিস হলেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উপার্জনকারী। কারণ, ২০১৮ সালে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু বিরাট কোহলিকে রিটেইন করেছিল ১৭ কোটি রুপিতে।

২. আইপিএল নিলাম থেকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উপার্জনকারী হলেন ম্যাক্সওয়েল

অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে ১৪ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে কিনে নিয়েছে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। আইপিএলের ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত মোট ৫টি নিলাম থেকে সর্বমোট ৪৫ কোটি ৩০ লাখ রুপি উপার্জন করতে সক্ষম হয়েছেন ম্যাক্সওয়েল। ২০১৩ সালে ৫ কোটি ৩২ লাখ, ২০১৪ সালে ৬ কোটি, ২০১৮ সালে ৯ কোটি, ২০২০ সালে ১০ কোটি ৭৫ লাখ রুপি উপার্জন করেন তিনি। এবার করলেন ১৪ কোটি ২৫ লাখ রুপি।

তবে নিলাম থেকে উপার্জিত অর্থে এখনও শীর্ষে রয়েছেন যুবরাজ সিং। মোট ৬টি নিলাম থেকে তিনি উপার্জন করেছিলেন ৪৮ কোটি ১০ লাখ রুপি। দিনেশ কার্তিক ছয়টি নিলাম থেকে উপার্জন করেন ৩৮ কোটি ৮৫ লাখ রুপি এবং ক্রিস মরিস নিলাম থেকে উপার্জন করলেন ৩৭ কোটি ৯৬ লাখ রুপি।

তবে এই সংখ্যাগুলো দিয়ে কিন্তু আইপিএল সর্বোচ্চ উপার্জনকারী বোঝাবে না। কারণ, রিটেইন ক্রিকেটাররা সব মিলিয়ে উপার্জন করেছেন আরও বেশি।

৩. অনভিষিক্ত ক্রিকেটার হিসেবে রেকর্ড গড়লেন গৌথাম

কৃষ্ণাপ্পা গৌথাম। অফ স্পিন অলরাউন্ডার। আইপিএল নিলামে তার ভিত্তিমূল্য ছিল মাত্র ২০ লাখ রুপি। তিন থেকে চারটি দল ঝাঁপিয়ে পড়ে তাকে কেনার জন্য। শেষ পর্যন্ত গৌথামকে কিনতে সমর্থ হয় চেন্নাই সুপার কিংস। তাতেই রীতিমত রেকর্ড গড়ে ফেললেন তিনি। ৯ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে বিক্রি হয়েছেন তিনি।

এখনও পর্যন্ত জাতীয় দলের ক্যাপ ওঠেনি মাথায়। তার আগেই এত বড় দামি ক্রিকেটার হয়ে গেলেন তিনি। অনিভিষিক্ত ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএলের ইতিহাসে যা রেকর্ড। এর আগে অনিভিষিক্ত হিসেবে সর্বোচ্চ ৮ কোটি ৮০ লাখ রুপিতে বিক্রি হয়েছিলেন ক্রুনাল পান্ডিয়া। ২০১৮ সালে তাকে কিনেছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। পবন নেগিকে ২০১৬ সালে ৮ কোটি ৫০ লাখ রুপিতে কিনেছিল দিল্লি ডেয়ারডেভিলস এবং ২০১৯ সালে বরুন চক্রবর্তীকে ৮ কোটি ৪০ লাখ রুপিতে কিনেছিল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব (বর্তমানে পাঞ্জাব কিংস)।

৪. রিলে মেরেডিথ হচ্ছেন সবচেয়ে দামি অনভিষিক্ত বিদেশী ক্রিকেটার

২৪ বছর বয়সী অস্ট্রেলিয়ান ফাস্ট বোলার রিলে মেরেডিথ। বিগ ব্যাশে নিজের জাত ছিনিয়েছেন। এ কারণে আইপিএলের নিলামে তাকে নিয়ে রীতিমত ঝড় উঠলো। শেষ পর্যন্ত তাকে কিনে নিয়েছে প্রীতি জিনতার দল পাঞ্জাব কিংস। ৮ কোটি রুপিতে বিক্রি হয়েছে রিলে মেরেডিথ।

জাতীয় দলের হয়ে এখনও খেলেননি, এমন বিদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে আইপিএলের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হলেন মেরেডিথ। ২০১৮ সালে জোফরা আর্চারকে রাজস্থান রয়্যালস কিনেছিল ৭ কোটি ২০ লাখ রুপিতে। তখনও আর্চারের জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক হয়নি।

৫. ভিত্তিমূল্য থেকে ৪৬.২৫ গুণ বেশি দামে বিক্রি হলেন গৌথাম

কৃষ্ণাপ্পা গৌথাম নিজের ভিত্তিমূল্য নির্ধারণ করেছিলেন সবচেয়ে কম, ২০ লাখ রুপি। কিন্তু তিনি বিক্রি হলেন ৯ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে। এর অর্থ, ভিত্তিমূল্য থেকে কত বড় লাফ দিলে এতবেশি মূল্যে কেউ বিক্রি হতে পারেন! গৌথাম ভিত্তিমূল্য থেকে ৪৬.২৫ গুণ বেশি মূল্যে বিক্রি হলেন এবারের আইপিএল নিলামে।

আইপিএলের ইতিহাসে এটা রেকর্ড, ভিত্তিমূল্য থেকে সবচেয়ে বড় লাফ দেয়ার। এর আগে ২০১৬ সালে লেগ স্পিনার মুরুগান অশ্বিন ভিত্তিমূল্য ১০ লাখ রুপি থেকে বিক্রি হয়েছিল ৪ কোটি ১০ লাখ রুপিতে। যা ছিল ৪৫ গুন বেশি।

৬. এক নিলামে চারজনের মূল্য ১৪ কোটির বেশি

আইপিএলের নির্দিষ্ট একটি নিলামে চারজনের বেশি ক্রিকেটারের মূল্য উঠলো ১৪ কোটি রুপির বেশি। এর আগে আর কোনো আইপিএল নিলামে এত বেশি ক্রিকেটারের মূল্য ১৪ কোটি রুপি ছাড়িয়ে যায়নি। ক্রিস মরিস, কাইল জেমিস, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল এবং জিয়ে রিচার্ডসন- এই চারজনের মূল্য উঠলো ১৪ কোটি প্লাস।

এর আগে ১৪ কোটি প্লাস রুপির মূল্য যে কয়বারই উঠেছে, একজনের বেশি ওঠেনি। ২০২০ সালে প্যাট কামিন্স, ২০১৭ সালে বেন স্টোকস একবার করে এবং যুবরাজ সিং দু’বার- ২০১৫ এবং ২০১৪ সালে।

৭. রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুতেই ১৪ কোটি প্লাস খেলোয়াড় বেশি

আইপিএলের দলগুলোর মধ্যে বিরাট কোহলির দল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুতেই রয়েছে ১৪ কোটি রুপির বেশি দামি খেলোয়াড়। প্রথমে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে ১৪ কোটি ২৫ লাখ রুপিতে কিনে নেয়ার পর নিউজিল্যান্ডের পেসার কাইল জেমিসনকে ১৫ কোটি রুপিতে কিনে নিয়েছে ব্যাঙ্গালুরু।

এছাড়া দলটিতে আরও একজন আছেন ১৪ কোটি রুপির খেলোয়াড়। ২০১৪ সালে যুবরাজ সিংকেও ১৪ কোটি রুপি দিয়ে কিনেছিল ব্যাঙ্গালুরু। অন্যদের মধ্যে ১৪ কোটি প্লাস রুপি দিয়ে কেনা ফ্রাঞ্চাইজি হচ্ছে- রাজস্থান রয়্যালস ১৬ কোটি ২৫ লাখ রুপি দিয়ে ক্রিস মরিস, ২০১৫ সালে দিল্লি ডেয়ারডেভিলস (যুবরাজকে), ২০২০ সালে কলকাতা নাইট রাইডার্স (প্যাট কামিন্সকে), ২০১৭ সালে রাইজিং পুনে সুপার জায়ান্ট (বেন স্টোকসকে), ২০২১ সালে পাঞ্জাব কিংস (জিয়ে রিচার্ডসনকে)।

৮. কাইল জেমিসন হলেন নিউজিল্যান্ড থেকে আইপিএলে সবচেয়ে দামি ক্রিকেটার

১৫ কোটি রুপিতে পেসার কাইল জেমিসনকে কিনে নিয়েছে রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। এর অর্থ, নিউজিল্যান্ড থেকে সবচেয়ে দামি ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএলে বিক্রি হলেন তিনি। তার চেয়ে তিনগুন কমদামে বিক্রি হওয়া ট্রেন্ট বোল্ট রয়েছেন দ্বিতীয় স্থানে। ২০১৭ সালে কলকাতা নাইট রাইডার্স ৫ কোটি রুপিতে কিনেছিল বোল্টকে।

 

প্রাসঙ্গিক

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept