হোম আন্তর্জাতিক ৭-০ গোলে জিতল লিভারপুল, বার্সাকে রুখে দিল ভ্যালেন্সিয়া

৭-০ গোলে জিতল লিভারপুল, বার্সাকে রুখে দিল ভ্যালেন্সিয়া

by salman

ম্যাচের শুরু থেকেই দাপট। সেই দাপট অব্যহত রেখে দুর্দান্ত এক জয় তুলে নিল লিভারপুল। শনিবার ক্রিস্টাল প্যালেসকে তাদেরই মাঠে ৭-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে প্রিমিয়ার লিগের টেবিল টপাররা।

লিভারপুলের হয়ে দুটি করে গোল করেছেন রবার্তো ফিরমিনো আর মোহামেদ সালাহ। একটি করে গোল করে উৎসবে নাম জড়িয়েছেন সাদিও মানে, তাকুমি মিনামিনো আর জর্ডান হেন্ডারসন।

ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই এগিয়ে যায় লিভারপুল। সাদিও মানের পাস থেকে বল পেয়ে ডান পায়ের নিচু শটে জাল খুঁজে নেন মিনামিনো। ৩৫তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মানে নিজেই। ফিরমিনোর বাড়ানো বল ডি-বক্সে পেয়ে ডান পায়ের শটে গোল করেন সেনেগালের এই ফরোয়ার্ড।

বিরতির ঠিক আগ মুহূর্তে ফিরমিনো ৩-০ করেন স্কোরলাইন। ৪৪ মিনিটে অ্যান্ড্রু রবার্টসনের ক্রস ডি-বক্সে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে পায়ের টোকায় জাল খুঁজে নেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড।

গোলের সেই উৎসব থামেনি বিরতির পরও। ৫২ মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বুলেট গতির শটে গোল করেন লিভারপুল অধিনায়ক হেন্ডারসন। দ্বিতীয়ার্ধে বদলি হিসেবে নামেন সালাহ। ৬৮ মিনিটে তার পাস ডি বক্সে পেয়ে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন ফিরমিনো।

বদলি হিসেবে নামলেও যেন খালি হাতে ফিরতে চাননি সালাহ। চার মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে ক্রিস্টাল প্যালেসকে শেষ সময়ে কাঁদান মিসরীয় ফরোয়ার্ড। ৮১ মিনিটে হেড থেকে প্রথম, ৮৪ মিনিটে ডি বক্সের বাইরে থেকে জোরালো শটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন সালাহ। শেষতক ৭-০ গোলের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে রেডরা।

এতে করে ১৪ ম্যাচে ৯ জয় ও ৪ ড্রয়ে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার এক নম্বরেই আছে লিভারপুল। তাদের থেকে এক ম্যাচ কম খেলে ২৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে টটেনহ্যাম হটস্পার। আর হারের পর ১৮ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্দশ স্থানে আছে ক্রিস্টাল প্যালেস।

চরম উত্তেজনার ম্যাচে বার্সাকে রুখে দিল ভ্যালেন্সিয়া

আহ, কি ম্যাচ! আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ, দুই দলের মরণপণ লড়াই, দারুণ হেডে লিওনেল মেসির গোল, আবার মেসিই মিস করলেন পেনাল্টি। ন্যু ক্যাম্পে বার্সেলোনা-ভ্যালেন্সিয়ার ম্যাচটিতে কোনোকিছুরই যেন কমতি ছিল না।

কিন্তু এমন এক লড়াইয়ে জিততে পারল না কোনো দলই। শনিবার রাতে উত্তেজনায় ঠাসা ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র হয়েছে। লা লিগায় টানা দুই জয়ের পর পয়েন্ট হারিয়েছে লিওনেল মেসির দল।

ম্যাচের প্রথমার্ধে সেভাবে খুঁজেই পাওয়া যায়নি বার্সাকে। বেশিরভাগ সময় বল দখলে রাখলেও আক্রমণগুলো অগোছালো ছিল তাদের। এই সুযোগে চাপ বাড়ায় ভ্যালেন্সিয়া।

২৯ মিনিটের মাথায় এগিয়েও যায় তারা। সোলেরের কর্নার থেকে বল পেয়ে লাফিয়ে উঠে দারুণ এক হেডে গোল করেন ফরাসি ডিফেন্ডার মুখতার দিয়াখাবি।

বিরতির ঠিক আগ মুহূর্তে বেশ নাটক হয় ম্যাচে। মেসির দারুণ পাস ধরে ডি-বক্সে ঢোকা আঁতোয়া গ্রিজমানকে ফেলে দিয়েছিলেন হোসে গায়া। রেফারি লাল কার্ড দেখান তাকে, যা নিয়ে মাঠে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

ফলে ভিএআরের সাহায্য নেন রেফারি। বার্সা পেনাল্টি পেলেও রেফারিকে লাল কার্ড বাতিল করে হলুদ কার্ড দেখাতে হয়। পেনাল্টির আগে পরে ফের নাটক।

অভিজ্ঞ মেসিই শট নিয়েছেন, কিন্তু তার শট ঝাঁপিয়ে পড়ে আটকে দেন ভ্যালেন্সিয়া গোলরক্ষক হাউমে ডমেনেক। তবে হতাশা বাড়তে দেননি মেসি। আলগা বল বাঁ দিকে পেয়ে দূরের পোস্টে ক্রস বাড়ান আলবা, গোলমুখ থেকে হেডে ফাঁকা জালে বল পাঠান বার্সেলোনা অধিনায়ক। সমতায় ফেরে বার্সা।

দ্বিতীয়ার্ধে ঘুরে দাঁড়ায় রোনাল্ড কোম্যানের দল। গোছানো ফুটবলে বিরতির কিছু পরই গোল পেয়ে যায় বার্সা। ডি-বক্সের মুখ থেকে অসাধারণ বাইসাইকেল কিকে বার্সেলোনার হয়ে প্রথম গোল করেন উরুগুয়ের তরুণ সেন্টার-ব্যাক আরোহো।

প্রথমে পিছিয়ে পড়েও পরে এগিয়ে যাওয়া বার্সা অবশ্য সে আনন্দ ধরে রাখতে পারেনি খুব বেশি সময়। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠা ম্যাচে ৬৯তম মিনিটে সমতায় ফেরে ভ্যালেন্সিয়া। বাঁ দিক থেকে গায়ার কাটব্যাক বক্সের মুখে পেয়ে নিখুঁত শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন গোমেস। শেষ পর্যন্ত ২-২ গোলের ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়ে দুই দল।

এই ড্রয়ের পর লা লিগায় ১৩ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বরে আছে বার্সেলোনা। ১২ ম্যাচে ২৯ পয়েন্টে শীর্ষে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

 

প্রাসঙ্গিক

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept